অংশগ্রহণমূলক স্থানীয় সরকার নির্বাচনে ব্রিটেন সন্তুষ্ট


britinসদ্যসমাপ্ত উপজেলা নির্বাচনের উদাহরণ দিয়ে বাংলাদেশে নিযুক্ত ব্রিটিশ হাইকমিশনার রবার্ট গিবসন বলেন, ব্রিটেন এদেশে জবাবদিহিমূলক গণতন্ত্র দেখতে চায়। এ জন্য স্বাধীন মিডিয়া, পার্লামেন্টে শক্তিশালী বিরোধী দল এবং প্রাতিষ্ঠানিক স্বাধীনতা খুবই জরুরি। সাম্প্রতিককালে স্থানীয় সরকার নির্বাচন অংশগ্রহণমূলক হওয়ায় ব্রিটেন সন্তুষ্ট।

সোমবার সকালে সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর সঙ্গে নগর ভবনে মতবিনিময়ের পর সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে একথা বলেন গিবসন।ব্রিটিশ কারি ইন্ডাস্ট্রির সংকট প্রসঙ্গে ব্রিটিশ হাইকমিশনার বলেন, ব্রিটিশ সরকার কারি ইন্ডাস্ট্রির সংকট কাটিয়ে ওঠার চেষ্টা করছে। কারি ইন্ডাস্ট্রির সঙ্গে সংশ্লিষ্টদেরর কীভাবে সহযোগিতা করা যায়, আমরা সে প্রচেষ্টা চালাচ্ছি।

সম্প্রতি কিছু লোক স্টুডেন্ট ভিসায় ব্রিটেনে গিয়ে পড়ালেখা বাদ দিয়ে কাজের সঙ্গে যুক্ত হওয়ায় স্টুডেন্ট ভিসার অপব্যবহার হচ্ছে বলে উল্লেখ করেন হাইকমিশনার রবার্ট গিবসন।ব্রিটেনের সঙ্গে সিলেটের ঐতিহাসিক সম্পর্কের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, এখানকার বিপুলসংখ্যক মানুষ যুক্তরাজ্যে বসবাস করেন। এ জন্য ব্রিটিশ হাইকমিশনের কাছে সিলেটের গুরুত্ব অত্যধিক।

সিলেটে প্রবাসীদের সমস্যাবলি নিয়ে আলোচনা করতে তিনি সিলেট সফর করছেন বলে জানান হাইকমিশনার।এ প্রসঙ্গে মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, প্রবাসীদের বিষয়ে সিটি করপোরেশন খুবই আন্তরিক। প্রবাসীদের সমস্যাবলি নিরসনে সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে শিগগিরই একটি ওয়েবসাইট খোলা হবে। প্রবাসীরা তাদের জমিজমা দখল সংক্রান্ত অভিযোগ এ ওয়েবসাইটে জানাতে পারবেন।

মতবিনিময়কালে উপস্থিত ছিলেন হাইকমিশনের পলিটিক্যাল অ্যানালিস্ট এজাজুর রহমান, করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এনামুল হাবীব, সচিব মমতাজ বেগম, ভারপ্রাপ্ত প্রধান প্রকৌশলী নুর আজিজুর রহমান ও প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. সুধাময় মজুমদার।

(113)