আবু বকরকে পাওয়া গেছে


abu-bokorঅপহরণের ৩৫ ঘণ্টা পর বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতির (বেলা) নির্বাহী পরিচালক সৈয়দা রিজওয়ানা হাসানের অপহৃত স্বামী আবু বকর সিদ্দিককে উদ্ধার করা হয়েছে।বৃহস্পতিবার মধ্য রাতে মিরপুরের আনসার ক্যাম্প এলাকায় তাকে নামিয়ে দিয়ে যায় অপহরণকারীরা। এ সময় তার চোখ গামছা দিয়ে বাঁধা ছিল। দীর্ঘ সময় গামছা বেঁধে রাখার কারণে তাঁর নাকের ওপরে কাল দাগ পড়ে গেছে।

পুলিশের রমনা বিভাগের ডিসি শেখ মারুফ হাসান রাত আড়াইটার দিকে মুঠোফোনে জানান, অপহরণকারীরা চোখ বাঁধা অবস্থায় সিদ্দিককে মিরপুর আনসার ক্যাম্প এলাকায় ফেলে যায়। সেখান থেকে তিনি সিএনজি অটোরিকশায় চড়ে ধানমণ্ডির সেন্ট্রাল রোডের বাসার দিকে যাচ্ছিলেন। রাত দেড়টার দিকে কলাবাগান বাসস্ট্যান্ডে বসানো চেকপোস্টে পুলিশ সিএনজি থামিয়ে পরিচয় জানতে চান। পরিচয় জানার পর তাকে ধানমণ্ডি থানায় নিয়ে যাওয়া হয়।

শেখ মারুফ হাসান জানান, কেন কারা তাকে অপহরণ করেছে- তা এখন তদন্ত করে দেখা হবে।  স্বামীর উদ্ধার হওয়ার খবর শুনে রাতে ধানমণ্ডি থানায় ছুটে যান রিজওয়ানা। সেখানে তিনি সাংবাদিকদের জানান, তার স্বামী উদ্ধার হওয়ায় তিনি খুশি।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী যেহেতু নিজে বিষয়টি তদারকি করেছেন, তাই তার স্বামীকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে। তিনি গণমাধ্যমের ভূমিকার প্রশংসা করেন। আল্লাহর কাছে শুকরিয়া আদায় করেন তিনি।

ধানমণ্ডি থানার ডিউটি অফিসার উপ-পরিদর্শক তছলিম উদ্দিন জানান, কলাবাগান বাসস্ট্যান্ড এলাকায় পুলিশের একটি তল্লাশি চৌকি (চেকপোস্ট) বসানো হয়েছিল। রাত পৌনে ২টার দিকে সেখানে সন্দেহজনক একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশাকে থামান কর্তব্যরত পুলিশ সদস্যরা। ওই অটোরিকশায় যাত্রী হিসেবে ছিলেন আবু বকর সিদ্দিক। পুলিশ তাকে সেখান থেকে ধানমণ্ডি থানায় নিয়ে আসে।

থানায় বসে আবু বকর সিদ্দিক সাংবাদিকদের বলেন, “ওরা আমাকে চোখ বাধা অবস্থায় ফেলে গেছে। চোখ খুলে দেখি মিরপুরের পাইকপাড়া আনসার ক্যাম্প। বাড়ি ফেরার সিএনজি ভাড়াও অপহরণকারীরা দিয়ে যায়। অপহরণকারীদের আমি চিনতে পারিনি। তারা কোনো নির্যাতন করেনি।”

অপহরণের পর কোথায় নেওয়া হয়েছে- এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, “আমি বুঝতে পারিনি। আমার চোখ বাধা ছিল। তবে যেখানে রাখা ছিল সেটি একটি পাকা ভবন।  আমাকে একবার দাড়ি কামানোর সুযোগ দিয়েছিল তারা। কি কারণে অপহরণ করা হয়েছে তা জানি না। অপহরণকারীরা একবার গাড়ি বদল করেছিল।”

রাত সোয়া ৩টার দিকে থানা থেকে বাসায় যান আবু বকর।বুধবার দুপুরে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিঙ্ক রোডে ভূঁইয়া ফিলিং স্টেশনের সামনে থেকে সৈয়দা রিজওয়ানা হাসানের স্বামী আবু বকর সিদ্দিককে অপহরণ করে দুর্বৃত্তরা।

অপহরণের ঘটনার পর থেকেই রাজধানীর আশপাশ এলাকার বিভিন্ন সড়কে বসানো হয় অতিরিক্ত চেকপোস্ট। চলে ব্যাপক অভিযান।ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) ও র‌্যাবের একাধিক দল ঘটনার পরপরই ঢাকা থেকে নারায়ণগঞ্জ ছুটে যায়। বুধবার বিকেল থেকেই অনেক এলাকায় শুরু হয় অভিযান।পুলিশের পক্ষ থেকে দেশের সব থানা, সীমান্ত এলাকা, নৌ ও  বিমানবন্দরে সতর্ক বার্তা পাঠানো হয়। মাঠ পর্যায়ে তল্লাশির পাশাপাশি প্রযুক্তির সহায়তা নিয়েও চলে অনুসন্ধান।

(120)