“দর্শনা রেলবন্দর লুটেরাদের দখলে” বিজিবি’র বিশেষ অভিযান


railশামসুজ্জোহা পলাশ:চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার দর্শনা রেলবন্দর এলাকায় বিজিবি’র বিশেষ অভিযান। ১৪ টি দেশীয় অস্ত্র, বন্দরের নিরাপত্তরক্ষীদের ৪ জোড়া পোষাক ও বন্দরে খালাশের অপেক্ষায় থাকা রেলের ওয়াগন (বগি) বেরকরা সোয়বিন, ১১৮ বোতল ফেনসিডিল, লগ কাঠ, মোটর পা¤পসহ যুবলীগের ৩ নেতাকর্মীকে আটক করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)। আটকৃতরা হলেন- যুবলীগনেতা আইনাল হোসেন (৩৫), আব্দুর রহমান (৩২) ও যুবলীগ কর্মী শামীম (৩৭)। সোমবার দুপুর ১ টার দিকে দর্শনা পাঠানপাড়াস্থ যুবলীগের গোপন অফিস (আস্তানা) থেকে এগুলো আটক ও উদ্ধার করা হয়।

চুয়াডাঙ্গা-৬ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে: কর্ণেল এস এম মনিরুজ্জামান জানান, তার নেতৃত্বে দর্শনা বিজিবি ক্যা¤েপর কো¤পানী কমান্ডার সুবেদার আব্দুল আউয়াল খান সঙ্গীয় ফোর্সসহ গোপন তথ্যের ভিত্তিতে দর্শনা আন্তর্জাতিক রেল বন্দরে অভিযান চালায়। এসময় দামুড়হুদা উপজেলার দর্শনা পাঠানপাড়ার মৃত রওশন কাসারীর ছেলে যুবলীগ কর্মী আইনাল হোসেন, আব্দুর রহমান ও বিল্লাল হোসেনের ছেলে শামীমকে আটক করা হয়। তাদের স্বীকারোক্তী অনুযায়ী পাঠানপাড়াস্থ রেলওয়ের জায়গায় অবস্থিত যুবলীগের গোপন আস্তানা তল্লাশি করে ৫ টি চাপাতি, ২ টি ছোরা, ২ টি রামদা, ৪ টি শিকদা, ১ টা হুক, ১১৮ বোতল ফেনসিডিল, ১ লক্ষ টাকার কাঠের লগ, ১ টি মোটরপা¤প ও রেলবন্দর থেকে লুটকৃত ৪ বস্তা ভূষিমালসহ ৪ সেট রেলওয়ে নিরাপত্তা কর্মীদের পোশাক উদ্ধার করা হয়। তিনি আরও জানান, দর্শনা রেলবন্দরে ভারত থেকে আমদানীকৃত মালামালের ওয়াগন (বগি) ভেঙ্গে লুটপাট করে থাকে। এব্যপারে সম্প্রতি সংশ্লিষ্ঠ রেলবন্দর কতৃপক্ষ বন্দরে বিজিবি মোতায়েন করেন।

বন্দরের এই লুটেরাদের ব্যাপারে গত ১২ এপ্রিল আমাদের অনলাইনে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ হওয়ার পর বিজিবিসহ সংশ্লিষ্ঠ কতৃপক্ষ নড়ে চড়ে বসে। এবং তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ করে সোমবার দুপুরে বিজিবি’র একটি বিশেষদল বন্দর এলাকায় অভিযান শুরু করে। আর প্রথম অভিযানেই বিজিবি বড় ধরনের সাফল্য অর্জন করল।

(110)