দামুড়হুদায় সন্ধারাতে বাজারের উপর এক মুদি ব্যবসায়ীকে কুপিয়েছে অজ্ঞাত দুর্বৃত্ত


Chuadangarপলাশ, চুয়াডাঙ্গা: চুয়াডাঙ্গা দামুড়হুদার জয়রামপুর স্কুল বটতলা মোড়ে বাজারের উপর এক মুদি ও মুরগি ব্যবসায়ী আবুল কাশেমকে (৫৫) ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাত ৯টার দিকে তাকে তার দোকানে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করে এক অজ্ঞাত যুবক দ্রুত সটকে পড়ে। প্রতিবেশীরা আবুল কাশেমকে উদ্ধার করে প্রথমে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেয়। সেখানে কর্তব্যরত ডাক্তার প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তাকে ঢাকায় রেফার করেন। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত তিনি ঢাকা মেডিকেলে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছিলেন। দুর্বৃত্তের হামলায় ক্ষতবিক্ষত আবুল কাশেম জয়রামপুর গাজী পোর্টির বাবর আলী গাজীর ছেলে।
ঘটনার বর্ণনা দিতি গিয়ে তার ৪র্থ ভাই শহিদুল জানান, রাত ৯ টার দিকে আমি ও আমার প্রতিবেশী শাহাবুল ভাইয়ের দোকানে যায়। ধান কাটার বিষয় নিয়ে আলোচনা করি। শেষে দুভাই এক সাথে বাড়ি যেতে চাইলে ভাই বলে, একটু দাঁড়া দোকানটা বন্ধ করি। আমি পার্শ্ববর্তী শাহাজানের দোকানে বসে চায়ের অডার দিই। এ সময় উপস্থিত লোকজন ধরধর করে চিৎকার করতে থাকে। আমি ছুটে গিয়ে দেখি দোকানের দরজার গোড়ায় রক্তাক্তা অবস্থায় মুখ থুবড়ে পড়ে আছে। রক্তে ভেসে যাচ্ছিলো দোকান।স্থানীয়দের সহযোগিতায় ভাইকে দ্রুত চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নিই।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ঘটনার আগেই দুর্বৃত্তরা তার দোকানের বিদ্যুত সংযোগ বিছিন্ন করে দেয়। তারা আরো জানায়, মুখ বাধা অবস্থায় কালো প্যান্ট ও শাদা গেঞ্জি পরিহিত বেটে আকৃতির একজন দুর্বৃত্ত দোকানের পেছন দিক দিয়ে মাঠের মধ্যে পালিয়ে যেতে দেখেছে। তবে তাকে কেউ চিনতে পারেনি। চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক বলেছেন, ধারালো অস্ত্র দিয়ে আবুল কাশেমের মুখে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করা হয়েছে। জিহবাটাও কেটে গেছে। ফলে দ্রুত তাকে ঢাকায় নেয়ার পরামর্শ দেয়া হয়। ডাক্তারের পরামর্শে রাতেই তাকে ডাকা মেডিকেলে নিয়েছে পরিবারের সদস্যরা।

(104)