ফাইন্যান্সিয়াল ইনক্লুশনে দক্ষিণ এশিয়ায় দ্বিতীয় বাংলাদেশ : গভর্নর


atiur_rahman_morningsunbdবাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ড. আতিউর রহমান বলেছেন, বিশ্বব্যাংকের গ্লোবাল ইনডেক্স সূচক অনুযায়ী দক্ষিণ এশিয়ায় ফাইন্যান্সিয়াল ইনক্লুশনে বাংলাদেশের এখন দ্বিতীয় অবস্থানে আছে। প্রথম অবস্থানে রয়েছে শ্রীলংকা।

শনিবার রাজধানীর বাংলাদেশ ইস্টিটিউট অব ব্যাংক ম্যানেজমেন্ট (বিআইবিএম) এ ম্যানেজমেন্ট অ্যান্ড রিসার্চ ডেভেলপমেন্ট ইনিশিয়েটিভ (এমআরডিআই) আয়োজিত ‘পলিসি সার্পোট টু সিএসআর ইন দি কনটেক্স অব ট্যাক্স ইক্সামশান ফর দি ব্যাংকিং সেক্টর’ বিষয়ক গোলটেবিল আলোচনায় তিনি একথা জানান।

তিনি বলেন, আর্থিক অন্তর্ভুক্তির রোল মডেল হিসেবে বাংলাদেশ এখন বিশ্বে তার পরিচয় তুলে ধরতে সক্ষম হয়েছে। ক্ষুদ্রঋণ, দশ টাকার হিসাব ও মোবাইল ব্যাংকিং হিসাব যুক্ত করলে এই সূচকে বাংলাদেশের অবস্থানই প্রথম হবে।

গভর্নর আরো বলেন, সিএসআর খাতে কোনো কোম্পানির ব্যয় করা প্রকৃত অর্থের ওপর ১০ শতাংশ পর্যন্ত আয়কর রেয়াত সুবিধা রয়েছে। তবে, এ আয়কর রেয়াতের সুবিধা পেতে বেশকিছু শর্ত আরোপ করা হয়েছে। একটি শর্ত হচ্ছে কোম্পানির মোট আয়ের ২০ শতাংশ বা ৮ কোটি টাকা এর মধ্যে যেটি কম, তার অধিক ব্যয়িত অর্থের ক্ষেত্রে আয়কর রেয়াত প্রযোজ্য হবে না। সিএসআর ব্যয়ের খাতগুলো সরকার অনুমোদিত হতে হবে। এই ধরনের আরো অনেক শর্ত রয়েছে।

ট্যাক্স রিবেট সুবিধা পাওয়ার জন্যে সিএসআর ব্যয়ের ন্যূনতম সীমা ৮ কোটি টাকার বেশি হওয়া উচিৎ বলে তিনি মনে করেন। কেননা, কোনো কোনো ব্যাংক এখন এর চেয়ে অনেক বেশি পরিমাণে সিএসআর ব্যয় করছে বলে জানান তিনি।

গভর্নর জাতীয় রাজস্ব বোর্ডসহ সংশ্লিষ্ট সকল পক্ষের কাছে আয়কর রেয়াত পাওয়ার অন্য শর্তগুলোও আরো সহজ করার দাবি জানান।

অনুষ্ঠানে বক্তারা একটি সমন্বিত সিএসআর ফান্ড গঠন করার আহ্বান জানান। পাশাপাশি একটি সমন্বিত নীতিমালা এবং এর জন্য প্রতিষ্ঠানগুলোকে পুরস্কৃত করার ব্যবস্থা করতে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলোকে অনুরোধ করেন।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সদস্য সৈয়দ মো. আমিনুল করিম, বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর জনাব এস. কে সুর চৌধুরী, বিআইবিএম এর মহাপরিচালক ড. তৌফিক আহমদ চৌধুরী, এমআরডিআই-এর নির্বাহী পরিচালক হাসিবুর রহমান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজনেস স্টাডাডিজ বিভাগের ডিন শিবলী রোবায়েতুল ইসলাম, বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক ডেপুটি গভর্নর খন্দকার ইব্রাহিম খালেদ প্রমুখ। এছাড়া বিভিন্ন ব্যাংকের শীর্ষ নির্বাহীবৃন্দ, বাংলাদেশ ব্যাংক, এনবিআর, এমআরডিআই ও বিআইবিএম এর কর্মকর্তাবৃন্দ এ আলোচানা সভায় উপস্থিত ছিলেন।
অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন ফাইন্যান্সিয়াল এক্সপ্রেস পত্রিকার সম্পাদক মোয়াজ্জেম হোসেন।

(142)