বারডেম চিকিৎসকদের কর্মবিরতি প্রত্যাহার


doctorরাজধানীর বারডেম হাসপাতালের চিকিৎসকরা তাদের কর্মবিরতি প্রত্যাহার করেছেন।চিকিৎসকদের ওপর হামলার ঘটনায় ঢাকা জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেনকে প্রত্যাহারের পর বুধবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে এ সিদ্ধান্ত নেন তারা।এদিকে, এএসপি মাসুদকে বুধবার দুপুরে প্রত্যাহার করে পুলিশ সদর দফতরে সংযুক্ত করা হয়েছে।

বারডেম হাসপাতালের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাজমুন নাহার সমকালকে বলেন, “চিকিৎসকদের ওপর হামলার ঘটনায় দায়ীদের বিরুদ্ধে সরকার ব্যবস্থা নিয়েছে। ফলে চিকিৎসকরা তাদের আন্দোলন প্রত্যাহার করেছেন।”

চিকিৎসাধীন এক রোগীর মৃত্যুকে কেন্দ্র করে চিকিৎসকদের মারধর ও হাসপাতালে ভাংচুরের ঘটনায় জড়িতদের শাস্তির দাবিতে মঙ্গলবার সকালে কর্মবিরতির ডাক দেন চিকিৎসকরা। সকাল ১০টার দিকে চিকিৎসা বন্ধ করে হাসপাতালের সামনে শাহবাগে সড়কে অবস্থান নিয়ে মানববন্ধন ও সমাবেশ করেন তারা। বুধবারও একই কর্মসূচি পালন করেছেন চিকিৎসকরা।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, বারডেম হাসপাতালের ১৩২ নম্বর ওয়ার্ডের ১৩৩১ নম্বর বেডে চিকিৎসাধীন সিরাজুল ইসলাম নামে এক রোগী রোববার রাত ৮টার দিকে মারা যান। চিকিৎসকদের অবহেলায় রোগীর মৃত্যুর অভিযোগ এনে রাত সাড়ে ৯টার দিকে রোগীর স্বজনরা কর্তব্যরত চিকিৎকদের ওপর হামলা এবং ১৩ তলায় ভাংচুর চালায়। এতে ডা. আনোয়ার হোসেন, ডা. কল্যাণ দেবনাথ ও ডা. শামীমা আক্তার নামে তিনজন গুরুতর আহত হন। হামলা থেকে রক্ষা পেতে ডা. শামীমা টয়লেটে আশ্রয় নিলে সেখানে গিয়ে তার ওপর হামলা চালানো হয়। তাকে উদ্ধার করতে গিয়ে ডা. ফিরোজ আমিনও লাঞ্ছিত হন।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে চিকিৎসকদের দেওয়া স্মারকলিপি থেকে জানা গেছে, রোগীর মৃত্যুর পর রোববার রাত সাড়ে ৯টার দিকে ঢাকা জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেন ও সাবেক এক মন্ত্রীর এপিএস পরিচয় দেওয়া বাবুর নেতৃত্বে ৬০-৭০ জনের একটি দল চিকিৎসকদের ওপর হামলা ও ১৩ তলায় ভাংচুর চালায়।

(108)