বৈশাখ এলেই উত্তেজিত হন এরশাদ


 

ershadবৈশাখ এলেই উত্তেজিত হন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ। বৈশাখ নিয়ে লেখা তার নিজ কবিতায় এমনই লিখেছেন এ কবি। কবিতার নাম- ‘আমি এবং বাংলার বৈশাখ’। কবিতার প্রথম কয়েকটি চরণ- আমি এবং বাংলার বৈশাখ, ‘প্রকৃতির রচিত বৃক্ষের মত আমরা বেড়ে উঠেছি

বৈশাখ এলেই আমি উত্তেজিত হই
বৈশাখ মানেই নতুন প্রাণের সঞ্চার………।

পহেলা বৈশাখে নিজের লেখা এ কবিতা নেতাকর্মীদের পড়ে শুনিয়েছেন তিনি। সোমবার রাজধানীর গুলশানের একটি কমিউনিটি সেন্টারে জাতীয় পার্টি ঢাকা মহানগর (উত্তর) আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এরশাদ  এ কবিতা পাঠ করেন। তিনি বলেন, “আজ পহেলা বৈশাখ। বাংলা বছরের প্রথম দিন। সারা জাতি আজ উজ্জীবিত, আনন্দিত। সবাই আনন্দ করছে। আমার মনেও আজ নতুন প্রাণের সঞ্চার হয়েছে।”

এরশাদ বলেন, এই পহেলা বৈশাখ সরকারি ছুটি ছিল না। ১৯৮৭ সালে আমিই প্রথম পহেলা বৈশাখকে সরকারি ছুটি ঘোষণা করেছিলাম। এর আগে কেউ করেনি।

তিনি বলেন, সমপ্রতি উচ্চ আদালত বিলবোর্ডে ইংরেজির পাশাপাশি বাংলা ভাষার উপস্থিতি থাকতে হবে বলে রায় দিয়েছে। এখানে আমি বলব, ১৯৮৭ সালে আমিই কিন্তু প্রথম সাইনবোর্ডে বাংলাভাষার উপস্থিতি বাধ্যতামূলক করার নির্দেশ দিয়েছিলাম। আজ হাই কোর্টও একই রায় দিয়েছে। আমি উচ্চ আদালতের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানাই।

অনুষ্ঠানে জাতীয় পার্টির মহাসচিব জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু, প্রেসিডিয়াম সদস্য আনিসুল ইসলাম মাহমুদ,  এস এম ফয়সল চিশতীসহ দলসহ দলীয় নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

(131)