ব্রিটিশ রাজপরিবারে নতুন অতিথি আসছে?


300220140413153218

ব্রিটিশ রাজপরিবারে আবারও কি নতুন অতিথি আসছে? এমন একটি প্রশ্ন গণমাধ্যমে শোনা যাচ্ছে। এর পেছনে অবশ্য কিছু কারণও রয়েছে।নিউজিল্যান্ড সফরে গিয়ে ব্রিটিশ সিংহাসনের দ্বিতীয় উত্তরাধিকারী প্রিন্স উইলিয়াম কয়েকটি মন্তব্য করেন। ওই মন্তব্যে তাদের সংসারে নতুন অতিথি আসার ইঙ্গিত রয়েছে। আর একে কেন্দ্র করে চলছে তুমুল আলোচনা, কিছু গালগল্পও হচ্ছে বটে।

রোববার ডেইলি মেইলের এক খবরে এ তথ্য জানানো হয়েছে। খবরে আরো বলা হয়েছে, প্রিন্স উইলিয়াম ও কেট মিডলটন যখন নিউজিল্যান্ডে পৌঁছান তখন আকর্ষণের কেন্দ্রে ছিল তাদের কোলের শিশু প্রিন্স জর্জ। প্রিন্স জর্জই এখন ব্রিটিশ সিংহাসনের তৃতীয় উত্তরাধিকারী। জর্জ ছিল সবার দৃষ্টিতে।

 নিইজিল্যান্ডের কেমব্রিজের নর্থ আইল্যান্ড শহরের দিকে যাওয়ার পথে হঠাত্ প্রিন্স উইলিয়াম বলে বসলেন, প্রিন্স জর্জের স্পটলাইটে ভাগ বসাতে আরেকজন আসছে। সঙ্গে সঙ্গে সবার মনোযোগ ঘুরে যায় রাজবধূ কেট মিডলটনের দিকে। উইলিয়ামের বক্তব্যের সত্যতা যাচাই করতে সতর্কভাবে পর্যবেক্ষণ করা হয় তাকে।

 নিউজিল্যান্ডের প্রথা অনুসারে ক্ষুদে প্রিন্স জর্জকে একটি লাল পশমের শাল উপহার দেওয়া হয়। দেশটির সরকারের নির্দেশনা পেয়ে সিনথিয়া রিড নামে এক ব্যক্তি শালটি বোনেন। সিনথিয়া বর্তমানে নিউজিল্যান্ডে থাকেন। নিউজিল্যান্ডে গিয়ে সিনথিয়ার সঙ্গে সাক্ষাত করেন উইলিয়াম। এ সময় তিনি বলেন, খু্ব শিগগির আপনাকে আর একটি শাল বুনতে হবে। কার জন্য, তা কিন্তু উইলিয়াম বলেননি। এ কথার অবশ্য অর্থভেদ আছে।

তবে তিন দিন আগে থেকে এই গুঞ্জন আরো ডালপাল মেলতে থাকে। বৃহস্পতিবার নিউজিল্যান্ডে এক সান্ধ্যভোজে বসে কেট মিডলটন খুবই কম খেলেন। এ থেকে ধারণা আরো ঘনিভূত হয়েছে। হয়তো সন্তানসম্ভবা হওয়ায় তিন সামান্যই খেয়েছেন।

এরকম কয়েকটি ঘটনার সূত্র ধরে সাংবাদিকরা ব্রিটিশ রাজপরিবারের নতুন অতিথি আসার সম্ভাবনা নিয়ে কানাঘোষা করছেন। তবে কেট-উইলিয়াম তো মুখই খোলেননি। এর সত্যাসত্য জানতে অপেক্ষা করা ছাড়া কোনো উপায় নেই।

(92)