ভারতে চালু হলো প্রথম ডাবল ডেকার ফ্লাইওভার


image_77415_0

ভারতের প্রথম ডাবল ডেকার ফ্লাইওভার মুম্বাইয়ের সান্টক্রুজ চেম্বার লিঙ্ক রোডের (এসসিএলআর) উদ্বোধন হল শুক্রবার। দেশের প্রথম ডাবল ডেকার ফ্লাইওভার হলেও লোকসভা ভোটের গেরোয় জাঁকজমকপূর্ণ কোনও উদ্বোধনী অনুষ্ঠান করা যায়নি। সেটা অবশ্য ভবিষ্যতের জন্য তোলা থাকছে। তবে প্রথম দিন থেকেই গাড়ি চলাচলের সবুজ সংকেত মিলেছে এ ফ্লাইওভারটিতে। ৪৫০ কোটি টাকা ব্যায়ে নির্মিত প্রায় সাড়ে ৩ কিলোমিটার লম্বা ফ্লাইওভারটি বাণিজ্যনগরীর যোগাযোগ ব্যবস্থায় একটি মাইল ফলক। সেণ্ট্রাল রেললাইনের উপর দিয়ে গিয়েছে ফ্লাইওভারটি। পূর্ব এক্সপ্রেসওয়ের সঙ্গে পশ্চিম এক্সপ্রেসওয়েকে যোগ করেছে। এর ফলে কুরলা, তিলকনগর, অমর নগরসহ বেশ কিছু জায়গা এখন খুব কম সময়ে যাওয়া যাবে। গতি বাড়বে বাণিজ্য নগরীর। এড়ানো যাবে যানজট।

শ্যাম পাণ্ডে নামে এক যাত্রী জানালেন, সান্টাক্রুজ চেম্বার লিঙ্ক রোড ধরে ঘটকোপার থেকে কুরলা যেতে এখন মাত্র ১০ মিনিট লাগবে। তার কথায়, এ ফ্লাইওভারের জন্য যাতায়াত অনেক সহজ হয়ে গেল। তবে এ উদ্বোধনে কোনওরকম জাঁকজমক না থাকায়, অনেকেই বিষয়টি জানতেন না। জানা গেছে, লোকসভা ভোট বলেই নির্বাচন কমিশনের কোড অফ কনডাক্ট অনুযায়ী কোনও অনুষ্ঠান করা যায়নি। তবে শুরুতেই নতুন ফ্লাইওভারের ট্রাফিক ব্যবস্থা নিয়েও অভিযোগ উঠেছে। নতুন ফ্লাইওভারে প্রচণ্ড ধুলো থাকার জন্য কোথাও কোথাও সমস্যায়ও পড়েছেন গাড়ি চালকরা। বাইক নিয়ে এদিন সান্টাক্রুজ চেম্বার লিঙ্ক রোড ধরে যাচ্ছিলেন সন্তোষ চৌহান। তিনি জানান, ফ্লাইওভারে এত ধুলো! তিলক নগরের কাছেতো কিছু দেখাই যাচ্ছিল না। বাইক চালাতেও খুব অসুবিধা হচ্ছিল।

তবে খুব তাড়াতাড়ি এসব ছোটখাটো সমস্যা মিটিয়ে ফেলা যাবে বলে মনে করছে মুম্বাই মেট্রোপলিটন রিজিয়ন ডেভেলপমেণ্ট অথরিটি। এর আগে একাধিকবার ফ্লাইওভারটির উদ্বোধনের কথা থাকলেও কাজ শেষ না হওয়ায় তা হয়নি। ২০০২ সালে ফ্লাইওভারটির পরিকল্পনা হয়। কাজ শুরু হয় ২০০৬ সালে।  দীর্ঘ আট বছরে অবশেষে চালু করা গেল ভারতের প্রথম ডাবল ডেকার ফ্লাইওভার। মুম্বাই মেট্রোপলিটন রিজিয়ন ডেভেলপমেণ্ট অথরিটির তরফে জানানো হয়েছে, মুম্বাইয়ের রেল যোগাযোগে বরাবরই যথেষ্ট উন্নত ছিল। তবে মুম্বাইয়ের পূর্ব পশ্চিমে যোগাযোগে খানিকটা ঘাটতি ছিল। সে সমস্যারই সমাধান হচ্ছে।

(133)