মামলা প্রত্যাহার ও আহতদের ক্ষতিপূরণের দাবি হেফজতের


 

hefajotগত বছর ৫ মে রাজধানীর শাপলা চত্বরের সমাবেশে আসা নিহতদের পরিবার এবং আহতদের ক্ষতিপূরণ দেওয়া দাবি জানিয়েছেন হেফজত ইসলামের কেন্দ্রীয় নায়েবে আমির ও আহ্বায়ক আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী। একইসঙ্গে হেফাজতে ইসলামের সদস্যদের বিরুদ্ধে দায়ের করা মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার এবং বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিটি গঠন করে প্রকৃত দোষীদের বিচারের আওতায় আনারও দাবি জানান তিনি। আজ সোমাবার দুপুরে রাজধানীর নতুন বাজার জামিয়া মাদানিয়া বারিধারা মাদ্রাসায় আয়োজিত আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে সভাপতির বক্তব্যে তিনি এ দাবি জানান। ২০১৩ সালের ৫ মে শাপলা চত্বরে নিহতদের স্মরণে হেফাজতে ইসলাম ঢাকা মহানগর এই আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করে।

তিনি বলেন, হেফাজতে ইসলাম যে ১৩ দফা দাবি উত্থাপন করেছিল তা কোনো শ্রেণী বা গোষ্ঠীর দাবি নয়। এটা সকল ধর্মের, সকল শ্রেণীর মানুষের সার্বভৌমত্বের দাবি। হেফাজতে ইসলাম শান্তি এবং নিরাপত্তায় বিশ্বাস করে। হেফাজতের ১৩ দফা দাবি মেনে না নেওয়ায় আজ জনজীবনে নিরাপত্তা নেই। হত্যা, গুম বেড়ে চলেছে। হেফাজতের ১৩ দফা দাবি মেনে নেওয়ার জন্য এ সময় সরকারের প্রতি আহ্বান জানান তিনি। সংগঠনের যুগ্ম-সদস্য সচিব মো. ফজলুল করিম কাশেমী বলেন, ভারতের ইশারায় করা হামলায় শহীদদের তালিকা আমাদের কাছে রয়েছে। ১০ হাজার জন এখনও আহত অবস্থায় রয়েছেন। এদের অনেকেই পঙ্গুত্ব বরণ করেছেন। পরিবেশ তৈরি হলে নিহত-আহতদের পরিবারকে সকলের সামনে আনা হবে।

যুগ্ম-সদস্য সচিব মওলানা আহম্মদ আলী বলেন, শাপলা চত্বরে আমরা কাউকে ক্ষমতায় বসাতে বা কাউকে ক্ষমতা চ্যুত করতে যাইনি। আমাদের আন্দোলন সফল হয়েছে। নাস্তিকরা লেজ গুটিয়ে পালিয়েছে। যাদের হাতে রক্ত লেগেছে তাদের জনগণ প্রত্যাখ্যান করেছে। সে কারণেই ৫ জানুয়ারি সৃষ্টি হয়েছে। বাংলার মানুষ যত দিন ৫ মে মনে রাখবে ততদিন এই সরকার প্রত্যাখিত হবে। আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন যুগ্ম-আহ্বায়ক মওলানা আব্দুর রহিম সুফি, যুগ্ম-সদস্য সচিব মওলানা শফিক উদ্দিন, অধ্যাপক মওলানা আব্দুল করিম, সদস্য সচিব মো. ওবায়দুল্লাহ ফারুক, সংগঠনের প্রচার সেলের সদস্য মুফতি আব্দুল মালেক প্রমুখ।

(112)