মৌমাছি দিয়ে বক্ষবন্ধনী!


momachiপিলে চমকে যাওয়ার মতোই দৃশ্যটা। এক নারীর বুক ঢেকে রেখেছে অসংখ্য মৌমাছি। ঠিক তেমন একটি আশ্চর্যঘেরা ঘটনা। সারা মাপেলি নামের ৪৪ বছর বয়সী এই নারীর বসবাস যুক্তরাষ্ট্রের ওরিজন রাজ্যে। খবর ডেইলি মেইল।

গতকাল শনিবার ডেইলি মেইল এ আশ্চর্য ঘটনার ওপর একটি সচিত্র প্রতিবেদন ছেপেছে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মৌমাছি দিয়ে বক্ষবন্ধনী তৈরি করাই ওই নারীর প্রতিমুহূর্তের কাজ। মৌমাছিগুলো তার পোষা। তিনি নাকি কখনোই হুলের যন্ত্রণায় কাতর হননি। শুধু তাই নয়, বক্ষবন্ধনীতে কতগুলো মৌমাছি রয়েছে তাও জানেন সারা মাপেলি। গুনেগুনে ১২০০ মৌমাছির ঝাঁক তার গলা থেকে নাভি পর্যন্ত এমনভাবে আবৃত করে বসে পড়ে, যা অনায়াশে বক্ষবন্ধনীর কাজ করে।

সারা মাপেলি পেশায় একজন শিল্পী। ২০০১ সালে তিনি মৌমাছি দিয়ে বক্ষবন্ধনী তৈরির কৌশল আয়ত্ত করেন। এরপর থেকে ঘরে কি বাইরে অথবা পার্কে বসে বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডা দেওয়া, সব জায়াগাই তিনি মৌমাছির বক্ষবন্ধনী নিয়ে চলাফেরা করতে পারেন। মজার ব্যাপার হলো মৌমাছির ঝাঁক যখন তার বুক আবৃত করে, তখন তিনি ধর্মীয় নৃত্যের মুদ্রায় নাচতে পছন্দ করেন। এ নাচ তার জন্য মেডিটেশন হিসেবে কাজ করে বলে জানিয়েছেন সারা।

মৌমাছিগুলোকে কাছে আনার জন্য সারা মাপেলি এক ধরনের তেল ব্যবহার করেন। এ তেল নাকি ১০০ রাণী মৌমাছি থেকে পাওয়া সুগন্ধির মতো তীব্র গন্ধযুক্ত। এতে করে শরীরে মৌমাছি আবৃত হওয়ার পর টানা দুই ঘণ্টা সেগুলো রাখতে পারেন তিনি।মাপেলি তার ব্যক্তিগত ওয়েবসাইটে লিখেছেন, মৌমাছি তার বুক ঢেকে ফেলার পর তিনি অপর একজনের সঙ্গেও নাচতে পারেন। মৌমাছিগুলো তাকে ছাড়া আর কাউকে হুল ফোটায় না। মেডিটেশনের কারণে তিনি হুলের ব্যথা অনুভব করেন না। ওয়েবসাইটে একটি ভিডিওচিত্র পোস্ট করে মাপেলি সেখানে লিখে দিয়েছেন, কেউ যেন বাড়িতে এ কাজ করার চেষ্টা না করেন।

(144)