লংমার্চের নামে নৈরাজ্য করলে ছাড় নয়: হাছান মাহমুদ


image_77415_0

তিস্তা অভিমুখে লংমার্চের নামে নৈরাজ্য করলে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ।

শুক্রবার সকালে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর-রুনি মিলনায়তনে বঙ্গবন্ধু একাডেমী আয়োজিত ঐতিহাসিক মুজিব নগর দিবসের আলোচনা সভায় তিনি এ হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন।

হাছান মাহমুদ বলেন, “বিএনপি তিস্তা অভিমুখে লংমার্চ করার কর্মসূচি দিয়েছেন। লংমার্চের নামে কাউকে নৈরাজ্য করতে দেয়া হবে না। নৈরাজ্যকারীদের কঠোর হস্তে দমন করতে সরকার ও আওয়ামী লীগের প্রতিটি সদস্যকে সজাগ থাকতে হবে। জনগণ ও দেশবাসীর জানমাল রক্ষার জন্য সরকার সর্বদা সচেষ্ট থাকবে। কোনো ধরনের নৈরাজ্য সরকার বরদাশত করবে না।”

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ্য করে হাছান মাহমুদ বলেন, “যে দলের নেত্রী দিল্লিতে গিয়ে গঙ্গার পানির ন্যায্য হিস্যা চাইতে পারেননি এখন তিনি তিস্তার পানির ন্যায্য হিস্যা চান।”

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুলকে উদ্দেশ্ করে হাছান মাহমুদ বলেন, “সম্প্রতি মির্জা ফখরুল এক জনসভায় বলেছেন, ‘সবাইকে তারেক রহমানের মতো পড়া-লেখা করতে হবে।’ আমরা যদি তারেকের মতো পড়ালেখা করি তবে শহরে পড়ালেখা করে গ্রামের স্কুলে গিয়ে নকল করে পাস করতে হবে। কারণ তারেক কোনো পড়ালেখা করেননি।”

জিয়াউর রহমান স্বাধীনতার ঘোষক নয় এ বিষয়ে তিনি এলডিপি চেয়ারম্যান কর্নেল অলির একটি প্রশংসাপত্রকে প্রমাণ হিসেবে তুলে ধরে বলেন, “মীর শওকত আলী লিখিত কর্নেল অলি একটি এসিআরএ লেখা আছে। কর্নেল অলি অত্যন্ত সাহসী যিনি বঙ্গবন্ধুর স্বাধীনতার ঘোষণার কথা প্রথম জিয়াউর রহমানকে জানান। এ প্রশংসাপত্রে জিয়াউর রহমানের স্বাক্ষর রয়েছে।”

আয়োজক সংগঠনের উপদেষ্টা ব্যারিস্টার জাকির আহমেদের সভাপতিত্বে আরো উপস্থিত ছিলেন, ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি ফয়েজ উদ্দিন মিয়া, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মো. হাজী সেলিম এমপি, সাম্যবাদী দলের নেতা হারুন চৌধুরী প্রমুখ।

(105)