সাকিবের দুর্ভাগ্য


Shakib20140430013730

টি-টোয়েন্টির উত্তেজনা পেল বিশ্বের সব ক্রিকেট ভক্ত। আইপিএলে কলকাতা ও রাজস্থান রয়েলসের অসাধারণ ম্যাচটি বহুদিন ক্রিকেট ভক্তদের মনে থাকবে।

প্রথমে নির্ধারিত ২০ ওভারের ম্যাচ টাই। পরে ১ ওভারের সুপার ওভারও টাই। কিন্তু বাউন্ডারিতে এগিয়ে থাকায় জয়ের মুখ দেখলো রাজস্থান। প্রথমে ব্যাটিং করে রাজস্থান ১৭টি চার ও ১টি ছয় হাঁকায়।

অন্যদিকে কলকাতার ব্যাটসম্যানদের ব্যাট থেকে আসে ১২টি চার ও ২টি  ছয়ের মার। বাউন্ডারিতে পিছিয়ে থাকায় জয় অধোরাই থেকে গেল কলকাতার।

সুপার ওভারে আগে ব্যাটিং করে কলকাতা ১১ রান সংগ্রহ করে। জবাবে রাজস্থানও ১১ রান তুলে নেয়।

এর আগে টসে জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে রাজস্থান রয়েলস স্কোরবোর্ডে ১৫২ রান জমা করে। ওপেনার অজিঙ্কা রাহানের ব্যাট থেকে আসে সর্বোচ্চ ৭২ রান। ৫৯ বলে ৬ চার ও ১ ছয়ে এ রান করেন তিনি। এ ছাড়া শেন ওয়াটসনের ব্যাট থেকে আসে ৩৩ রান।

বল হাতে কলকাতার হয়ে বিনয় কুমার ৩০ রানে ২ উইকেট নেন।

জবাবে ব্যাটিংয়ে নেমে গৌতম গম্ভীরের ৪৫ রানে শুরুটা ভালোই করে কলকাতা। অপরপ্রান্তে থাকা ব্যাটসম্যানদের আসা-যাওয়ার মিছিলে যোগ দিলে বিপর্যয়ে পড়ে কলকাতা।

এক পর্যায়ে কলকাতার অবস্থান দাঁড়ায় ৪ উইকেটে ৮৮ রান। সেখান থেকে সাকিব ও সুরয়াকুমার যাদব ৪৯ রানের জুটি গড়ে দলকে জয়ের পথ দেখান। কিন্তু ১৯তম ওভারে ফকনার যাবদকে ফিরিয়ে আবারো কলকাতা শিবিরে আঘাত করেন। যাদব ১৯ বলে ৩ চার ও ১ ছয়ে ৩১ রান করেন। একই ওভারে ফকনার আরও দুটি উইকেট তুলে নেয়।

শেষ ওভারে কলকাতার জয়ের জন্যে ১২ রানের প্রয়োজন ছিল। প্রথম বলেই সাকিব বাউন্ডারি হাঁকিয়ে ব্যবধান কমিয়ে নিয়ে আসেন। পরের বলে দুই রান নিতে গিয়ে রান আউটের শিকার হন পিজুস চাওলা। এরপর সাকিব ও নারিন ৩ রান যোগ করেন।

শেষ বলে জয়ের জন্যে ৩ রানের প্রয়োজনে সাকিব ২ রান তুলে নিয়ে কলকাতাকে ড্রয়ের স্বাদ এনে দেন। বল হাতে ১ উইকেটের পর ব্যাট হাতে সাকিব ১৮ বলে ৩ চারে ২৯ রান করেন।

কিন্তু দুর্ভাগ্য সাকিবের। ভালো খেলেও কলকাতাকে জয় ছিনিয়ে এনে দিতে পারেননি।

(217)