হাওলাদার আমায় বাবা ডাকে, সে আমার সঙ্গেই থাকবে : এরশাদ


Hussain_M._Ershad‘রুহুল আমিন হাওলাদার আমায় বাবা ডাকে, তার সঙ্গে আমার কথা হয়েছে। যতদিন জীবিত থাকবে ততদিন সে আমার সঙ্গেই থাকবে।’ এমনই মন্তব্য করলেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, সদ্য নিয়োগপ্রাপ্ত মহাসচিব জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলুকে কাকরাইল জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় অফিসে নিয়ে এসে রবিবার সন্ধ্যায় সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন এরশাদ।

তিনি বলেন, ১৪ বছর পর মহাসচিব পদে পরিবর্তন এসেছে। তোমরা সবাই বাবলুকে চেনো। তার দীর্ঘ রাজনৈতিক অভিজ্ঞতা রয়েছে। ডাকসুর জিএস ছিল সে। তার নেতৃত্ব জাতীয় পার্টিতে প্রয়োজন আছে।

এরশাদ বলেন, আমরা আশা করব, সে (বাবলু) তার দায়িত্ব সুচারুভাবে পালন করবে এবং সফল হবে। বাবলুকে যদিও বয়সে তরুণ বলা যায় না। তাও সে তরুণ। সে পার্টিকে সংগঠিত ও গতিশীল করবে। তোমরা হাততালি দিয়ে ওকে অভিবাদন জানাও।

তিনি বলেন, হাওলাদার আমায় বাবা ডাকে। তার সঙ্গে আমার কথা হয়েছে। যতদিন জীবিত থাকবে সে আমার সঙ্গেই থাকবে। এরপর নিজেই উপস্থাপনা করে জিয়াউদ্দিন বাবলুকে বক্তব্য দেওয়ার আহ্বান জানান।

এ সময় বাবলু বলেন, আমার ওপর অর্পিত দায়িত্ব আমি পালন করব। আমি আজীবন স্যারের (এরশাদ) সঙ্গে থাকব। আমি বামপন্থী ছিলাম। কেন স্যারের সঙ্গে এসেছি। এরশাদ এ দেশের সংস্কারক। এ দেশে বঙ্গবন্ধুর পর যদি কারও নাম ইতিহাসে লেখা থাকে তাহলে এরশাদের নাম লেখা থাকবে।

এ সময় এরশাদ ও বাবলুকে শুভেচ্ছা জানানোর জন্য পাঁচ শতাধিক নেতাকর্মী জাতীয় পার্টির কার্যালয়ে উপস্থিত ছিলেন। নেতাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন প্রেসিডিয়াম সদস্য আবুল কাশেম, কাজী ফিরোজ রশিদ এমপি, এম এ হান্নান এমপি, হাফিজউদ্দিন আহমেদ, সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা, নূর-ই-হাসনা লিলি চৌধুরী, মো. নোমান মিয়া এমপি, যুব সংহতির সভাপতি অ্যাডভোকেট রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া, স্বেচ্ছাসেবক পার্টির সভাপতি লিয়াকত হোসেন খোকা এমপি, শ্রমিক পার্টির সভাপতি শাহ আলম তালুকদার, ছাত্র সমাজের সভাপতি সৈয়দ ইফতেখার আহসান হাসান, সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান মিরু প্রমুখ।

(93)