২৫০ বছরের ইতিহাসে মাহমুদুল্লাহ দ্বিতীয়


142014050516362120140505220728_3917
ক্রিকেটের ইতিহাস ঘাঁটলে দেখা যায় এই খেলাটির উৎপত্তি হয়েছিল রোমান সাম্রাজ্যের আমলে। কিন্তু ক্রিকেটার তৈরির বুনিয়াদি খেলা ‘প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটের’ ইতিহাস ২৫০ বছরের পুরোনো। এই দীর্ঘ সময়ের পরিক্রমায় ভূরি ভূরি রেকর্ড সৃষ্টি হয়েছে। আবার ভেঙেছেও।

সোমবার প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট ইতিহাসে এক অনন্য রেকর্ড গড়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগে ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোনের অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ।

বিসিএলের তৃতীয় রাউন্ডের খেলায় বিসিবি নর্থ জোনের বিপক্ষে খেলছে ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোন। সোমবার খেলার তৃতীয় দিনে নর্থ জোনের দ্বিতীয় ইনিংসে বল করতে এসে প্রথম দুই বলেই দুই উইকেট তুলে নেন।

সতীর্থরা চিৎকার করে মাহমুদুল্লাহকে বলেছিলেন যে তার হ্যাটট্রিক হয়েছে। কিন্তু তারা হয়তো খেয়াল করেননি আগের ইনিংসে যখন মাহমুদুল্লাহ বল হাতে শেষ ওভার করেছিলেন, তখন শেষ দুই বলে দুই উইকেট নিয়েছিলেন।

পরে দ্বিতীয় ইনিংসে আরো দুই উইকেট নিয়ে পর পর ৪ বলে ৪ উইকেট নেওয়ার এক অনন্য কৃতিত্ব গড়েছেন।

এখানেই শেষ নয়, দুই ইনিংসের মাঝে ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোনের হয়ে তিনি খেলেছেন নায়কোচিত ১০৫ রানের ইনিংস। তাও আবার অপরাজিত থেকে।

সবাই মাহমুদুল্লাহর হ্যাটট্রিক নিয়েই উল্লাস করছিল। কিন্তু তাদের উল্লাসের আড়ালে মাহমুদুল্লাহ যে স্থান করে নিয়েছেন প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটের ইতিহাসে। ফার্স্ট ক্লাস ক্রিকেটের ২৫০ বছরের ইতিহাসে দ্বিতীয় ব্যক্তি হিসেবে মাহমুদুল্লাহ পর পর ৪ বলে ৪ উইকেট নেওয়ার পাশাপাশি অপরাজিত সেঞ্চুরি করেছেন।

এর আগে ১৯৯৬ সালে ভারতের বিপক্ষে এই কীর্তি গড়েছিলেন কেভান জেমস। অবশ্য তিনি এক ওভারের চার বলে চার উইকেট নিয়েছিলেন। পরে ব্যাট হাতে করেছিলেন অপরাজিত ১০৩ রান।

তবে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে অপরাজিত সেঞ্চুরি ও হ্যাটট্রিক করার কৃতিত্ব খুব বেশি খেলোয়াড়ের নেই। ১৫তম ক্রিকেটার হিসেবে এই তালিকায় স্থান করে নিয়েছেন ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোনের অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ।

বিসিএলের শেষ দিনে ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোনের হয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট হাতে কেমন করেন এই অধিনায়ক, সেটাই এখন দেখার বিষয়।

(459)