৩৩ দেশে মধুচন্দ্রিমা


honey_moonবিয়ের পর নবদম্পতির মধুচন্দ্রিমায় যাওয়া এখন এক ধরনের রেওয়াজ। সামর্থ্য অনুযায়ী নবদম্পতি কয়েকদিনের জন্য দেশে বা দেশের বাইরে বেড়াতে (মধুচন্দ্রিমা) যায়। তবে অ্যানি ও মাইক হাওয়ার্ড নবদম্পতি বিশ্বের দীর্ঘতম মধুচন্দ্রিমায় সময় কাটিয়েছেন। তারা ৬৭৫ দিনে ৩৩টি দেশ ঘুরেছেন।

প্রায় দুই বছর ধরে অর্ধেক পৃথিবী ঘুরে নিজেদের মধুচন্দ্রিমা যাপন করলেন অ্যানি আর মাইক হাওয়ার্ড। ভালোবাসা-ভ্রমণ-অ্যাডভেঞ্চারের মিশেলে এ পর্যন্ত পৃথিবীর দীর্ঘতম হানিমুনে সময় কাটালেন তারা।

চাকরিতে যোগ দেওয়ার তাড়া, অতিরিক্ত ছুটির জন্য অফিসে বসের চোখ রাঙানি- সব সমস্যা মেটাতে বিয়ের পরই চাকরি ছেড়ে দেয় এ জুটি। তারা নিজেদের অ্যাপার্টমেন্ট ভাড়া দেন। ব্যস, সুটকেস গুছিয়ে বেরিয়ে পড়েন ম্যারাথন মধুচন্দ্রিমায়। কখনও আফ্রিকার ঘন জঙ্গল, কখনও রিও ডি জেনিরো কার্নিভাল, কখনও থাইল্যান্ডের রান্নার ক্লাস, তো কখনও আবার জাপানি শিল্পকলার ক্র্যাশকোর্স।

এভাবেই অভিজ্ঞতা আর অ্যাডভেঞ্চারের ঝুলি কানায় কানায় পূর্ণ করে সবে ঘরে ফিরেছেন তারা। যাত্রাপথে নানারকম সমস্যা, বাধার মুখোমুখি হয়েছেন। তবে ঘোরার নেশা আর পরস্পরের প্রতি ভালোবাসা তাতে বিন্দুমাত্রও ক্ষীণ হয়নি।

তাদের এ অভিজ্ঞতা সবার সঙ্গে ভাগ করে নিতে একটি ওয়েবসাইট চালু করেছেন মাইক ও অ্যানি। নাম দিয়েছেন ‘হানিট্রেক ডটকম’। সেই সাইটে মাইক নিজের পেশা হিসেবে উল্লেখ করেছেন, ‘পেশাদার হানিমুনার’। সূত্র :এনডিটিভি ডটকম।

(114)